×
×

Blog Page

ফ্রিল্যান্সারদের ইনকাম ট্যাক্স রিটার্ণ
ফ্রিল্যান্সারদের ইনকাম ট্যাক্স রিটার্ণ

Publcihed by Admin 2 months ago

তথ্য প্রযুক্তি খাতে আয় অথবা ফ্রিল্যান্সারদের আয় ২০২৪ সাল পর্যন্ত করমুক্ত ।


প্রশ্ন হচ্ছে যেহেতু উক্ত আয়ের উপর কোন ট্যাক্স হবে না তাই ইনকাম ট্যাক্স রিটার্ন বা আয়কর বিবরণী দিতে হবে? 


আয়কর অধ্যাদেশ ১৯৮৪ এর ষষ্ঠ তফসিলের পার্ট A তে করমুক্ত আয়সমুহের সিডিউল ।


ষষ্ট তফসিলের এর অন্যতম ধারা ৩৩ এ করমুক্ত তথ্য প্রযুক্তি খাতের আয়সমূহের তালিকা উল্লেখ করা


হয়েছে। যা নিম্নরূপঃ


সফটওয়্যার তৈরিসহ তথ্য - প্রযুক্তি সংশ্লিষ্ট কয়েকটি খাতের ব্যবসায় আয়।


খাতগুলো হচ্ছেঃ Software development; Software or application customization; Nationwide


Telecommunication Transmission Network (NTTN); Digital content development and


management; Digital animation development; Website development; Website services; Web


listing; IT process outsourcing; Website hosting; Digital graphics design; Digital data entry and


processing; Digital data analytics; Geographic Information Services (GIS); IT support and


software maintenance service; Software test lab services; Call center service; Overseas medical


transcription; Search engine optimization services; Document conversion, imaging, and digital


archiving; Robotics process outsourcing এবং Cybersecurity Services.  


ষষ্ঠ তফসিলে উল্লেখিত তথ্য প্রযুক্তি খাতের আয় সমূহকে ২০২৪ সাল পর্যন্ত কর মুক্ত ঘোষণা করা হয়েছে। 



এই করমুক্ত এই আয়ের জন্য কি আয়কর রিটার্ন বা আয়কর বিবরনী জমা করতে হবে? 



অনেক ফিল্যান্সার এবং তথ্য প্রযুক্তি খাতের আয় অর্জনকারী করমুক্ত খাতের এই আয়ের জন্য রিটার্ন দেয়া


বাধ্যতামূলক কিনা এই বিষয়ে দ্বিমত করে থাকেন । এমনও দেখা যায় যে, অনেকে রিটার্ন জমার কথা


জানেই না আবার কেউ কেউ জানে এই আয় করমুক্ত তাই রিটার্ন দিতে হবে না । এমন ও ্দেখা গেছে


নিয়মিত রিটার্ন দিচ্ছে কিন্তু করমুক্ত আয় সমুহ রিটার্নে প্রদর্শন করেনি। তবে সবচাইতে বেশি সংখ্যক প্রশ্ন


আসে এইটা করমুক্ত আয় ট্যাক্স তো হবে না রিটার্ন কেন দিতে হবে? 



প্রথমেই যে বিষয়ে পরিস্কার হতে হবে তা হচ্ছে শুধুমাত্র ট্যাক্স হলেই রিটার্ন দিতে হয় এই ধারনা ভুল। ট্যাক্স


আরোপ না হলেও আইনগত আরো নানাবিধ কারনে আয়কর রিটার্ন বা আয়কর বিবরনী জমা করা


বাধ্যতামূলক। 



আয়কর অধ্যাদেশ এর ষষ্ঠ তফসিলের পার্ট A এর ৩৩ ধারায় শর্ত দিয়ে বলা হয়েছে করমুক্ত সুবিধা ঐ ব্যক্তি


পাবেন যিনি ৭৫ ধারায় রিটার্ন জমা করবেন। তার মানে স্পষ্ট হচ্ছে রিটার্ন জমা না করলে আপনার করমুক্ত


আয় হলেও করমুক্ত সুবিধা পাবেন না। 



অন্যদিকে আয়কর অধ্যাদেশ ১৯৮৪ এর অধ্যায় ৬ ধারা ৪৪ এ অব্যাহতি এবং ছাড় সুবিধাসমূহ অন্তর্ভুক্ত


করা হয়েছে। ধারা ৪৪ এর উপধারা ৫ এর A এর i এবং ii এর মাধ্যমে স্পষ্ট করা হয়েছে ধারা ৭৫ এর


অনুযায়ী কোন করদাতা রিটার্ন জমা করতে ব্যর্থ হলে অব্যাহতি এবং ছাড় সুবিধা পাবেন না। 



অন্যদিকে ৭৫ ধারার সারসংক্ষেপ হচ্ছে কাদের জন্য রিটার্ন দেয়া বাধ্যতামূলক। ৭৫ ধারার বিস্তারিত


আলোচনার প্রয়োজন নেই ৭৫ এর F এ বলা হয়েছে যাদের টি আই এন করা বাধ্যতামূলক বা টি আই এন


আছে তাদের রিটার্ন জমা বাধ্যতামূলক। 



কেউ যদি করমুক্ত আয় ভেবে ইতিপূর্বে রিটার্ন জমা না করে থাকেন অবশ্যই ভুল করেছেন। এমন কি আয়


করমুক্ত হওয়া সত্ত্বেও করমুক্ত সুবিধা হারিয়েছেন।



আইটি খাতে আয় হলে ইনকাম টাক্স রিটার্ন জমাদিতে প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টস সমূহঃ



১ ই টি আই এন ( ETIN) 

২। ব্যাংক স্টেটমেন্ট 

৩। রেমিটেন্স সার্টিফিকেট 

৪-  অন্যান্য সম্পদের তথ্য 

৫। কাজের চুক্তি পত্র 

সময় মত আয়কর রিটার্ন জমা দিন।। 

যথাযত আইন অনুযায়ী সুবিধা নিন।।



আমান উল্লাহ সরকার